নিজের বিয়ে নিয়ে এবার যা বললেন তাসকিন

হঠাৎ করে বিয়ের পর ভীষণ ব্যস্ত জাতীয় দলের তারকা ক্রিকেটার তাসকিন আহমেদ তাজিম। নতুন জীবনের সময়গুলো দারুণ উপভোগ করলেও বিয়ের খবরটা আগে না জানাতে পারায় ভক্তদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করে বলেছেন, সময় করে সবাইকে জানিয়ে একটি বড় অনুষ্ঠান করবেন।

বুধবার ব্যস্ততার ফাঁকেই চ্যানেল আই অনলাইনকে তাসকিন বলেন, ‘বিয়ের পর আত্মীয়-বন্ধুদের বাসায় যাচ্ছি, জীবনের নতুন সময়টাকেও দারুণ উপভোগ করছি।

“ঘরোয়াভাবে বিয়ের অনুষ্ঠান করায় অনেককে জানাতে পারিনি। সেজন্য আমি দুঃখিত আশাকরি সময় করে সবাইকে জানিয়ে একটি বড় অনুষ্ঠান করব।”

জানা গেছে, তাসকিনের জীবনসঙ্গী সৈয়দা রাবেয়া নাঈমার সঙ্গে দশম শ্রেণীতে পড়ার সময় মন দেয়া-নেয়ার পর্ব শেষ হয়। এরপর কেটে গেছে দীর্ঘ সাত বছর। পাশাপাশি এলাকায় থাকা, একই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা সবকিছুই চলছিল সবার আড়ালে। বিষয়টি দুই পরিবারে মধ্যে জানাজানি হলে একবছর আগেই পারিবারিকভাবে তাদের আংটি বদল হয়। এরপর থেকেই বিয়ের প্রস্তুতির জন্য তৈরি হচ্ছে ছিলেন দু’পরিবার।

তবে যে এতো চটজলদি বিয়েটা হয়ে যাবে তা নিজেও বুঝে উঠতে পারেনি মন্তব্য করে ২২ বছর বয়সী এ পেসার বলেন, ‘খেলায় আরও ফোকাস বাড়ানোর জন্য, জীবনটাকে সুন্দর করে গুছিয়ে নেয়ার জন্য বিয়েটা করে ফেলেছি। আর সবচেয়ে বড় কথা আল্লাহর হুকুম হয়েছে সেজন্যই হয়ে গেছে।’

“দেশবাসীকে বলবো আমাদের জন্য দোয়া করবেন। এবং আগের মতো যেন খেলার মাঠে ফিরে আসতে পারি সেজন্যও দোয়া করবেন।”

গণমাধ্যমে বিয়ের খবর প্রকাশ হওয়ার পর তাসকিনের মেয়ে ভক্তরা ভেঙ্গে পড়েছেন। অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘তাসকিনের বিয়ে মানি না’ বলে ইভেন্ট খুলেছেন। অনেকে আবার তার বিয়েকে দেখছেন নতুন করে খেলার মাঠে তাসকিনের প্রত্যাবর্তন।

সাউথ আফ্রিকায় সিরিজ শেষে ফিরে আসার একদিন পর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সৈয়দা রাবেয়া নাঈমার সঙ্গে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করেন হালের ক্রেজ তাসকিন। বিয়ের অনুষ্ঠানে মাশরাফি ও তামিম উপস্থিত থাকলেও বিপিএল নিয়ে ব্যস্ততা থাকায় তার বেশিরভাগ সহকর্মীই উপস্থিত হতে পারেননি।

তাসকিনের স্ত্রী বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ-এআইইউবি এর অর্থনীতি বিভাগে স্নাতক করছেন। তাসকিন নিজেও একই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। দু’জনের বাসাই রাজধানীর মোহাম্মদপুরে।